রাতে চলাচলে ১০ সতর্কতা!

অথর- টপিক- টিপস

রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে গভীর রাতে চলাচল করার সময় সবারই আলাদা সাবধানতা অবলম্বন করা প্রয়োজন । নানা ধরনের অপরাধীদের হাত থেকে বাঁচতে নিজেদেরই নিতে হবে বিশেষ সতর্কতা। বিশেষ করে পকেটমার, ছিনতাইকারী, অজ্ঞান পার্টি, মলম পার্টি প্রভৃতি  দুষ্কৃতিকারীদের খপ্পর থেকে দূরে থাকতে বিশেষ সতর্কতায় এই দশটি বিষয় রাতে চলাফেরা করার সময় স্মরণ রাখুন ।

১. চলুন আলোর পথে : রাতে চলাচলের সময় চেষ্টা করুন আলোকিত রাস্তা ব্যবহারের। অন্ধকারাচ্ছন্ন রাস্তা থেকে আলোকিত রাস্তা অধিকতর নিরাপদ।

২. স্টেশনে সচেতন : বাসস্ট্যান্ড, রেলস্টেশন, লঞ্চঘাটে গভীর রাতে এসে পৌঁছালে বাসায় ফেরার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্ক থাকুন। গভীর রাতে ট্যাক্সি, সিএনজি অটোরিক্সার পরিবর্তে বাস অধিকতর নিরাপদ। ফোনে চার্জ ও ব্যালেন্স পর্যাপ্ত রাখুন। তা না হলে গভীর রাতে প্রয়োজনের সময় কারো সাথে যোগাযোগ করতে হলে অসহায় হয়ে পড়বেন। খুব বেশি তাড়া না থাকলে সকাল হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে পারেন।

৩. অচিন জায়গায় সাবধান : রাতে অচেনা বা অপরিচিত কোন জাগয়া খুঁজে বের করার ক্ষেত্রে অধিকতর সতর্ক থাকুন। স্থানীয় বাসিন্দারা আপনার আচরণে যেন আপনাকে সন্দেহ না করে।

৪. মূল্যবান কিছু সাথে নয় : রাতে চলাচলের সময় দামী মোবাইল, বেশি পরিমাণ টাকা-পয়সা, স্বর্ণালংকার কিংবা অন্য মূল্যবান সামগ্রী প্রয়োজন না হলে বহন করা থেকে বিরত থাকুন।

৫. নয় নির্জনে চলাচল : নির্জন স্থানের পরিবর্তে ব্যস্ত সড়ক বা স্থান ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। অন্তত যেখানে লোক চলাচল আছে এমন সড়ক বা স্থান উত্তম।

৬. সঙ্গী রাখুন সাথে : রাতে বাইরে যাওয়ার প্রয়োজন দেখা দিলে একা না গিয়ে কাউকে সাথে রাখার চেষ্টা করুন। প্রয়োজনের সময় একে অন্যের সাহায্যে আসবে।

৭. বাইরের খাবারকে ‘না’ : রাতে চলাচলের সময় বাইরে বিক্রিত খাবার যতটা সম্ভব পরিহার করুন। অপরিচিত লোকের দেয়া খাবার ভুলেও খেতে যাবেন না।


আপনাদের গভীর রাতের পথ চলা হোক নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন। রাতে চলাফেরার সময় অবশ্যই বিষয়গুলো মেনে চলুন।


৮. নিশ্চিত হয়ে সাহায্য : চলার পথে কেউ সাহায্য চাইলে নিশ্চিত হতে চেষ্টা করুন সাহায্যপ্রার্থী কোনো প্রতারক দলের সদস্য কিনা। প্রয়োজনে পুলিশের সাহায্য নিন।

৯. অপরিচিতের ডাকে ‘না’ : ‘ভাই, একটু এদিকে আসেন। কথা আছে’- অপরিচিত কেউ রাস্তায় এভাবে আপনাকে ডাকলে চট করেই চলে যাবেন না। চেষ্টা করুন আশেপাশে লোকজন আছে এমন জায়গায় থেকে কথা বলার।

১০. ‘সাহায্য’ রাখুন পকেটে : থানার মোবাইল নম্বর সর্বদা নিজের মোবাইল ফোনে এবং মানিব্যাগে সংরক্ষণ করুন যেন প্রয়োজনে দ্রুত পুলিশের সাহায্য পেতে পারেন।

সূত্র : ডিএমপি নিউজ

দ্য সুলতান- এটি দ্য সুলতান.কমের একটি অফিসিয়াল আইডি। যাদের নামে কোনো আইডি দ্য সুলতানে নেই, তাদের নাম লেখার মাঝে ব্যবহার করে আমরা সাধারণত এই আইডির মাধ্যমে তাদের লেখাগুলো দ্য সুলতান.কমে প্রকাশ করে থাকি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*

গো টু টপ