চাদের সেরা তিন মসজিদ

অথর- টপিক- ফিচার

চাদ- সরকারী নাম চাদ প্রজাতন্ত্র। মধ্য আফ্রিকার একটি স্থলবেষ্টিত রাষ্ট্র। এর উত্তরে লিবিয়া, পূর্বে সুদান, দক্ষিণে মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্র, দক্ষিণ-পশ্চিমে ক্যামেরুন ও নাইজেরিয়া, এবং পশ্চিমে নাইজার। সমূদ্র থেকে দূরে অবস্থিত বলে এবং মরু জলবায়ুর কারণে চাদকে “আফ্রিকার মৃত হৃদয়” বলেও মাঝে মাঝে অভিহিত করা হয়। চাদকে তিনটি ভৌগোলিক অঞ্চলে ভাগ করা যায়: উত্তরের সাহারা মরুভূমি অঞ্চল, মধ্যভাগের ঊষর সাহেলীয় বেষ্টনী, এবং দক্ষিণের অপেক্ষাকৃত উর্বর সুদানীয় সাভানা তৃণভূমি অঞ্চল।

চাদ হ্রদ দেশটির বৃহত্তম এবং আফ্রিকার দ্বিতীয় বৃহত্তম জলাশয়। এই হ্রদের নামের দেশটির চাদ নামকরণ করা হয়েছে। সাহারা অঞ্চলে অবস্থিত তিবেস্তি পর্বতমালার এমি কৌসি চাদের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ। রাজধানী এনজামেনা দেশটির বৃহত্তম শহর। চাদে ২০০ বেশি ধরনের জাতিগত ও ভাষাভিত্তিক গোষ্ঠীর বাস। ফরাসি ও আরবি এখানকার সরকারি ভাষা। ইসলাম ধর্ম সবচেয়ে বেশি প্রচলিত। মধ্য আফ্রিকার মুসলিম দেশ চাদ। এর সেরা ও নান্দনিক কয়েকটি মসজিদ নিয়ে আমাদের আজকের আয়োজন।

১. এনজামেনা বড় মসজিদ : এটি চাদের সবচেয়ে বড় মসজিদ। রাজধানী এনজামেনায় অবস্থিত। সৌন্দর্য ও নান্দনিকতার বিচারেও এটি সেরা। এই মসজিদ কমপ্লেক্সে ইসলামি শিক্ষাসহ আরো বেশ কিছু সেবা কার্যক্রম পরিচালিত হয়।

২. আবেচাই মসজিদ : এই মসজিদটিও চাদের একটি বড় মসজিদ। এর স্থাপত্যশৈলীও বেশ চমৎকার। এর উজ্জল রং সহজের দর্শকের মনকাড়ে। এখানে মূলত দুটি মসজিদ। পুরনো মসজিদটির পাশেই গড়ে তোলা হয়েছে একটি নতুন মসজিদ।

৩. দাওয়াতুল ইসলাম মসজিদ : কাতারভিত্তিক ইসলামী এনজিও সংস্থা ‘দাওয়াতুল ইসলাম’ এর নিজস্ব অর্থায়নে চাদে বেশ কিছু মসজিদ গড়ে তোলা হয়েছে। এই মসজিদটিও তাদের অর্থায়নে গড়ে তোলা হয়েছে এই মসজিদটি।

 

জন্ম কুমিল্লায়। পড়াশোনা করেছেন মাদ্রাসায়। বর্তমানে একটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত। সম্পন্ন করেছেন ইসলামিক ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক কর্তৃক আয়োজিত একাধিক আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ। লেখালেখি করেন ছোট বেলা থেকেই। ইসলামী সভ্যতা, ইতিহাস মুসলিম বিশ্বের নানা ঘটনা প্রবাহ নিয়ে লেখেন নিয়মিত। আরবী ইংরেজি থেকে অনুবাদও করেন। দ্য সুলতানের সাথে আছেন কন্ট্রিবিউটিং রাইটার হিসেবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*

লেটেস্ট ফরম

এক ডিমের মসজিদ

ফয়সল চৌধুরী। লোকমুখে প্রচার পৃথিবীতে একটি ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন বেঙ্গির মা নামে এক
গো টু টপ