মাত্র ২৮ বছর বয়সে ১৯৬টি দেশ ভ্রমণ করার বিশ্বরেকর্ড !

অথর- টপিক- ভিডিওগ্রাফি/লিড স্টোরি

সারাবিশ্বের ১৯৬টি দেশ ভ্রমণ করা সহজ কথা নয়। আর এ অসাধ্য সাধন করেছেন মাত্র ২৮ বছর বয়সী এক ব্যাংকার। পাহাড়, মরুভূমি, সমুদ্র, নদী- এই বিশ্বে যা যা দেখার থাকতে পারে, তার বেশিরভাগই স্বচক্ষে দেখে ফেলেছেনভ্রমণলোভী জেমস অ্যাসকুইট। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ইন্ডিপেনডেন্ট। মূল ইংরেজি লেখাটি পড়তে ক্লিক করুন এই লিঙ্কে…

শুধু ভ্রমণই নয়, সব থেকে কম বয়সে বিশ্বের প্রথম পর্যটক হিসাবে ১৯৬টি দেশে ভ্রমণ করার রেকর্ডও গড়েছেন তিনি। কারণ মাত্র ২৪ বছর বয়সেই তিনি অধিকাংশ ভ্রমণের কাজ শেষ করেছেন। তার এ ভ্রমণে সময় লেগেছে প্রায় পাঁচ বছর। বিগত ২০১৩ সালে ভ্রমণ শেষে  তিনি তার সেই ভ্রমণের স্বীকৃতি হিসেবে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের সনদপত্র পান। আর এ কারণে তার ভ্রমণকাহিনীও স্থান পেয়েছে বিশ্বরেকর্ডের খাতায়।

বর্তমানে ২৮ বছর বয়স জেমস কাজ করেন লন্ডনের ডিউশ্চ ব্যাংকে। তিনি জানান, তার এ চাকরির বিষয়টি কখনো পরিকল্পনায় ছিল না।


২০১৩ সালে ভ্রমণ শেষে  তিনি তার সেই ভ্রমণের স্বীকৃতি হিসেবে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের সনদপত্র পান।


ভ্রমণের সূত্রপাত কিভাবে? এ প্রসঙ্গে তিনি জানান, তার বাবার হাত ধরেই ভ্রমণ শুরু করেন তিনি। এরপর বিষয়টি অনেকটা নেশার মতো হয়ে যায়। এভাবে একের পর এক দেশ ভ্রমণ করতে থাকেন।  কিভাবে এ ভ্রমণের টাকা পেলেন? এ প্রসঙ্গে তিনি জানান, তার জন্ম যুক্তরাজ্যের সাসেক্সে। তবে জীবনের অধিকাংশ সময় তিনি কাটিয়েছেন লন্ডনে। আর অল্প বয়স থেকেই তিনি নানা কাজ করে অর্থ জমাতে থাকেন। যেমন ১২ বছর বয়সে তিনি অর্থের বিনিময়ে প্রতিবেশীদের গাড়ি ধুয়ে দেন। এভাবে ১৮ বছর বয়সেই তিনি বেশ কিছু অর্থ জমাতে সক্ষম হন।

পরবর্তীতে ভ্রমণের সময় নানা দেশে গিয়ে নানা কাজ করেছেন তিনি। এতে অর্থ সাশ্রয়ের পাশাপাশি ভ্রমণের খরচটাও উঠে এসেছে। তিনি শুধু ভ্রমণই করছেন না, তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে চোখ রাখলে সেই সফরের কিছু ঝলকও রাখছেন তার ফলোয়ারদের জন্য। পোস্ট করছেন অবিশ্বাস্য ভ্রমণের কিছু টুকরো টুকরো অংশ।

তথ্যসূত্র : গিনেসওয়ার্ল্ডরেকর্ড.কম

আমি তারিক আজিজ। ঘুরে-বেড়ানো আমার প্রথম শখ ও আনন্দ। সাংবাদিকতা, লেখালেখি আর উদ্ভাবনমূলক বিষয়কে একীভূত করে নিয়েছি জীবনের সঙ্গে। তাই হেড অফ ক্রিয়েটিভ পদে দ্য সুলতানের সঙ্গে যাত্রা। ছোট্ট একটি মানুষ স্বপ্নবাজ হয়ে ভাবনা-কাজের জগতেই থাকতে ভালবাসি। নির্জন-নির্মল প্রকৃতি আমায় অনেক কিছু শিখিয়ে বেড়ায়। তাই নিরন্তর সৃষ্টির গল্প খুঁজে ফিরি...!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*

লেটেস্ট ফরম

গো টু টপ