Daily archive

February 18, 2017

মাতৃভাষা দিবসে বইয়ের মোড়ক উন্মোচন ও লেখক সম্মাননা

অথোর- টপিক- ফেস্টিভ্যাল

আসছে ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। মায়ের ভাষায় কথা বলার মানবিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে ১৯৫২ সালের এদিনে প্রাণ দিয়েছিলেন সালাম, রফিক, আব্দুল জব্বরসহ নাম না-জানা অনেক ভাষাশহীদ। ঢাকার পিচঢালা রাজপথ সেদিন রক্তে লাল হয়ে উঠেছিলো।

দিবসটিকে ভিন্নভাবে উদযাপনের উদ্যোগ নিয়েছে ইসলামি প্রকাশনী মাকতাবাতুল আযহার। দেশের তৃণমূল পর্যায়ে বাংলা বই ছড়িয়ে দেওয়ার মাধ্যমে প্রকাশনীটি ভাষাচর্চার ক্ষেত্রে কার্যকর অবদান রাখতে সক্ষম হয়েছে। প্রকাশনীটি এবারের ২১ ফেব্রুয়ারির আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে নতুন ১২টি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন ও লেখক সম্মাননা প্রদানের পদক্ষেপ নিয়েছে। নতুন বইগুলোর মধ্যে রয়েছে- ইয়াহইয়া ইউসুফ নদভীর ‘গল্পে আঁকা ইতিহাস’ ও ‘আবু গারিবের বন্দি’; সাংবাদিক শরীফ মুহাম্মদের ‘সুপ্রভাত মাদরাসা’ ও ‘লেখালেখি’; মাওলানা আবুল ফাতাহ মুহাম্মদ ইয়াহইয়ার ‘রচনা-সম্ভার’; দৈনিক যুগান্তরের কলামিস্ট মুফতী মুতিউর রহমানের ‘এ যুগের মাসায়িল’; আলোকিত বাংলাদেশের সহ-সম্পাদক আলী হাসান তৈয়বের ‘আলোর জীবন ফুলেল ভুবন’; সালাহউদ্দীন জাহাঙ্গীরের ‘বাংলার বরেণ্য আলেম’ ও আবদুল্লাহ আল ফারুকের ‘ইতিহাসের মৃত্যুঞ্জয়ী মহাবীর টিপু সুলতান’ ও ‘খোলা চিঠি’।


এবার পদকপ্রাপ্তদের তালিকায় রয়েছেন- মাওলানা আবদুল গাফফার, মাওলানা জাফর আহমদ, মাওলানা আবুল ফাতাহ মুহাম্মদ ইয়াহইয়া, মাওলানা ড. মুশতাক আহমদ, ইয়াহইয়া ইউসুফ নদভী  ও আবদুল্লাহ আল ফারুক।


কিপ রিডিং…

বিল গেটস : কিভাবে তিনি শীর্ষ ধনী?

অথোর- টপিক- এন্টারপ্রেনারশিপ

বিল গেটস। দীর্ঘ অধ্যাবসায় এবং কঠোর পরিশ্রম ও সাধনার মাধ্যমে একজন মানুষ বিশ্বের কোথায় অবস্থান করতে পারে তার বিরল দৃষ্টান্ত মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা যুক্তরাষ্ট্রের বিল গেটস। তাই তো বর্তমান বিশ্বের এক নম্বর ধনীর খেতাবটা তার আয়ত্বেই আছে এখনো । তাঁর সম্পদের পরিমাণ সাড়ে ৭ হাজার কোটি ডলার। টাকার অঙ্কে এর পরিমাণ ৬ লাখ কোটি টাকা, যা বাংলাদেশের চলতি অর্থবছরের বাজেটের প্রায় দ্বিগুণ। তিনি মূলত উদাহরণ সৃষ্টিকারী একজন উদ্যোক্তা, বিনিয়োগকারী, মানবহিতৈষী ও লেখক । আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ম্যাগাজিন ফোর্বস-এর তৈরি করা বিশ্বের সেরা ধনীদের তালিকায় তিনি রয়েছেন শীর্ষস্থানে। তার ধনসম্পদের মোট মূল্যমান ৭৬ বিলিয়ন বা ৭ হাজার ৬০০ কোটি মার্কিন ডলার। গত এক বছরে তার ধনসম্পদের মূল্য বেড়েছে ৯০০ কোটি ডলার।

হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী থাকাকালীন সহপাঠী ও বন্ধু পল অ্যালেনকে নিয়ে বেসিক প্রোগ্রাম লেখা শুরু করেন। তারপর সফটওয়্যার তৈরির মাধ্যমে কম্পিউটিং জগতে আনেন বৈপ্লবিক পরিবর্তন। ধীরে ধীরে মাইক্রোসফট-সহ তার ব্যবসা ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। মেধার সঙ্গে যোগ হয় পরিশ্রম। স্বপ্নকে ছুঁয়ে দেখার অনবদ্য চেষ্টা ও একাগ্রতা তাকে করে তুলেছে বিশ্বসেরা ধনী, বিশ্বের সবচেয়ে প্রশংসিত ও প্রভাবশালী ব্যক্তিদের একজন।


বিল গেটসের সফলতার পেছনে কি রহস্য লুকিয়ে আছে? জানতে চাইল তিনি খুবই স্বাভাবিক ভঙ্গিমায় সবাইকে অবাক করা উত্তর দেন। বিল গেটস বলেন, ‘আমাদের জন্য সফলতার প্রথম মূলমন্ত্র হলো, সব সময় খুব চৌকস ব্যক্তিদের কাজে নিয়ে আসুন।


কিপ রিডিং…

অসমিয়া : বাংলা ভাষার দুর্জ্ঞেয় সতীন

অথোর- টপিক- অপিনিয়ন

অক্ষর একটাই, ভাষাও একই তবু একেক দেশে তার উচ্চারণ একেক রকম— বিপ্রদাশ বড়ুয়ার ‘অপরূপ মিয়ানমার’ না পড়লে এ-কথা জানাই হতো না । যেমন— মিয়ানমারের মুদ্রা kyat-কে তারা উচ্চারণ করে ‘চ্যা’ বা ‘চ্যাট’। আজব লাগে না ! তদ্রূপ, অসমিয়া ভাষাকে অসমিয়া উচ্চারণে বলা হয় অখমিয়া । আবার অহমিয়াও বলা হয় । ইংরেজিতে লেখা হয়— Ôxômiya । কোথাও কোথাও Assamese-ও যে লেখা হয় না, তা নয় ।

অসমিয়া ভাষায় ভারতে প্রায় ১.৩ কোটি মানুষের মাতৃভাষা;[1] এদের অধিকাংশই ভারতের অসম রাজ্যে বাস করেন। এছাড়াও ভারতের অঙ্গরাজ্য পশ্চিমবঙ্গ, মেঘালয়, নাগাল্যান্ড,  অরুণাচল প্রদেশ এবং উত্তর-পূর্ব ভারতের কিছু অন্যান্য অংশ, পুনে-মহারাষ্ট্র, উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, বেঙ্গালুরু, কর্ণাটক, ও কলকাতায়[2] এবং সার্বভৌম রাষ্ট্র ভুটানেও অসমিয়া প্রচলিত । সুতরাং বিশ্বজুড়ে এই ভাষাভাষীলর সংখ্যা প্রায় ২ কোটি।[3]

বাংলাদেশের রংপুর অঞ্চলের বিপুল পরিমাণে মানুষ অসমিয়া ভাষায় কথা বলে এবং পার্বত্য রাঙামাটি, বান্দরবান ও খাগড়াছড়ি জেলায় বসবাসকারী আসামের বংশোদ্ভূত (অসমিয়) পরিবারের নারী-পুরুষের নিত্যদিনের মুখের বুলি অসমিয়া, কিন্তু বাংলাদেশে এই ভাষাভাষী মানুষের জনসংখ্যা কতো তা নিরূপণ করা হয় নি কখনো । কিপ রিডিং…

গো টু টপ