Monthly archive

April 2017

ইসলামী লেখক ফোরামের সভাপতি বাবর, সম্পাদক মুনীর

অথোর- টপিক- বাংলাদেশ

বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরামের ২০১৭-১৮ সেশনের কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করা হয়েছে। এতে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন ঢাকাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমের যুগ্ম বার্তা সম্পাদক জহির উদ্দিন বাবর। সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন কবি মুনীরুল ইসলাম।

এছাড়া সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আমিন ইকবাল এবং কোষাধ্যক্ষ পদে মুফতি তাসনিম নির্বাচিত হয়েছেন।


বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরাম ইসলামি ধারার তরুণ লেখকদের ঐক্যবদ্ধ প্লাটফর্ম। ২০১৩ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে এই সংগঠনটি যাত্রা শুরু করে। ইতোমধ্যে লেখকদের উন্নয়নে ফোরাম বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে।


কমিটির অন্য দায়িত্বশীলরা হলেন- সহ-সভাপতি রায়হান মুহাম্মদ ইবরাহিম, মাসউদুল কাদির, গাজী মুহাম্মদ সানাউল্লাহ; সহ-সাধারণ সম্পাদক আবদুল মুমিন ও হাসনাইন হাফিজ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আতাউর রহমান খসরু, রোকন রাইয়ান; প্রকাশনা সম্পাদক এমদাদুল হক তাসনিম; তথ্যপ্রযুক্তি সম্পাদক নকিব মাহমুদ; সাহিত্য সম্পাদক সায়ীদ উসমান; আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আবদুল গাফফার, আইন ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আবুল কালাম আনছারী, প্রশিক্ষণ সম্পাদক আবদুল্লাহ মোকাররম, প্রচার ও দপ্তর সম্পাদক ওমর ফারুক মজুমদার। এছাড়া নির্বাহী কমিটির সদস্য পদগুলো প্রথম বৈঠকে পূরণ করা হবে।

কিপ রিডিং…

পৃথিবীর অদ্ভুত সব ব্যাংকনোট

অথোর- টপিক- ফিচার/লিড স্টোরি

উসামা রাফিদ : ব্যাংকনোট, বিল, পেপারবিল বা এক কথায় নোট যা-ই বলা হোক না কেন, জিনিসটা ছাড়া যে আধুনিক সমাজে এক পা-ও নড়া যায় না তা বলাই বাহুল্য। আজ থেকে তেরশ বছর আগে চীনে প্রথম কাগজের নোটের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। তারপর মার্কো পোলোর হাত ধরে চীন থেকে প্রথমে ইউরোপ, তারপর গোটা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়ে। ব্যাংকনোটের এই বিশাল ইতিহাসের ফাঁকফোকরে অদ্ভুত কিছু গল্প লুকিয়ে থাকা বিচিত্র নয়। অদ্ভুত, বিচিত্র, আজগুবি সেই গল্পগুলোই তুলে ধরা হলো আজকের এই লেখায়।

প্রাচীনতম নোট : সপ্তম শতাব্দীতে প্রথম ব্যাংকনোট তৈরি হলেও সাধারণ সমাজে এর প্রচলন শুরু হয় দশম শতাব্দীতে, সং রাজবংশের হাত ধরে। সিচুয়ান সাম্রাজ্যের রাজধানী চেংডুতে ব্যবহার শুরু হয় ‘জিয়াওজি’ নামের এই ব্যাংকনোটের। নিউমিজম্যাটিস্টরা (মুদ্রা বিশেষজ্ঞ) এই নোটকেই প্রথম ব্যাংকনোট হিসেবে ঘোষণা করেন। নকল হবার ভয়ে এই নোটের উপর প্রচুর ছিলছাপ্পড় দেওয়া হত। কিপ রিডিং…

হাতের ক্রাচে ভর দিয়ে ১০০ মিটার দৌঁড়ানোর বিশ্বরেকর্ড!

অথোর- টপিক- ভিডিওগ্রাফি

গিনেসওয়ার্ল্ড রেকর্ড-০৬


শারিরীক প্রতিবন্ধী হওয়া সত্ত্বেও তার অক্ষমতাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে নতুন ধরনের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে সবার জন্য অুনপ্রেরণার এক অনন্য দৃষ্টান্তের প্রতীকী মানুষ ইথিওপিয়ার তামিরু জিগিয়ে। হাতের ক্রেচের ওপর ভর করে ভারসাম্য রক্ষা করে মাত্র ৫৭ সেকেন্ডে ১০০ মিটার পথ পাড়ি দিয়েছেন। এটি হাতের ক্রাচে ভর দিয়ে সবচেয়ে কম সময়ে ১০০ মিটার দৌঁড়ানোর রেকর্ড। মূল ইংরেজি লেখাটি পড়তে ক্লিক করুন এখানে…

তামিরু বিকলাঙ্গ পা নিয়ে জন্মগ্রহণ করেন এবং তিনি জানতে পারেন তার পা কখনোই ব্যবহার করেতে পারবেন না। কিন্তু তার স্বপ্নকে  দমিয়ে রাখতে পারেনি তার শারিরীক প্রতিবন্ধকতা।তাই শৈশব থেকেই তিনি হাতের ওপর ভর করে চলার কৌশল রপ্ত করে নিয়েছেন। বর্তমানে তিনি জার্মানিতে বাস করেন এবং একটি সার্কাস পার্টির হয়ে কাজ করছেন।
কিপ রিডিং…

ববি হাজ্জাজের নেতৃত্বে নতুন রাজনৈতিক দল

অথোর- টপিক- পলিটিক্স

পাঁচ দফা দাবি নিয়ে ববি হাজ্জাজের নেতৃত্বে আত্মপ্রকাশ করলো নতুন রাজনৈতিক দল জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন (এনডিএম)। সোমবার (২৪ এপ্রিল) বিকালে রাজধানীতে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে দলটির আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে ববি হাজ্জাজ বলেন, ‘এই দলে সবাই সমান। দলের সব বড় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কর্মীদের সম্মতিতে, তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে।


এনডিএম-এর দাবিগুলো হলো— জবাবদিহিতামূলক গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা, দুর্নীতি ও লুটতরাজ বন্ধ, রাজনৈতিক সহিংসতায় ছাত্র ও যুবকদের ঠেলে দেওয়া বন্ধ, আইনের শাসন কায়েম করতে প্রশাসনে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ বন্ধ এবং সাংবিধানিক মৌলিক অধিকার বাকস্বাধীনতা নিশ্চিত করতে হবে।


নির্বাচনের প্রার্থী বাছাই করা হবে প্রাইমারির মাধ্যমে। কোনও ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর স্বার্থ হাসিলের জন্য এই দল নয়। এনডিএম প্রতিহিংসা ও বিভেদের রাজনীতি করবে না।’
কিপ রিডিং…

বাংলাদেশের সেরা পাঁচ দর্শনীয় স্থান

অথোর- টপিক- ট্রাভেল

রবি ঠাকুরের সোনার বাংলা, নজরুলের বাংলাদেশ/জীবনানন্দের রূপসী বাংলা, রুপের যে তার নাইকো শেষ।


শামসুন্নাহার : বাংলা সাহিত্যের সেরা ৩ কবি বঙ্গমাতাকে তাদের চোখ দিয়ে দেখেছেন এবং আমাদের সাহিত্যকে করেছেন মহিমাময়। কেমন দ্বিজেন্দ্রলালের সকল দেশের রাণী, আমাদের এই দেশটা? সেটা ভালো করে বুঝতে হলে চষে বেড়াতে হবে, এই বাংলা মায়ের বুকে। হ্যাঁ, পাঠক, আজ আমরা বাংলাদেশের সেরা পাচটি জায়গার কথা বলব, যেখানে বাঙ্গালী হিসেবে, পরিব্রাজক হিসেবে জীবনে একবার হলেও যাওয়া উচিত। এই সেরা ৫ টি জায়গা হলো- সিলেটের রাতাগুল সোয়াম্প ফরেস্ট, পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত কক্সবাজার, কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকত, রয়েল বেঙ্গল টাইগারের আবাসভূমি সুন্দরবন, চর কুকরী- মুকরী। তাহলে ঘুরে আসি একবার সপ্নের সেই জায়গাগুলোতে।

এক. রাতাগুল সোয়াম্প ফরেস্ট : এটি জলামগ্ন একটি বন। বর্ষাকালে এই বনে অথৈ জল থাকে চার মাস। তারপর ছোট ছোট খালগুলো হয়ে যায় পায়ে-চলা পথ। আর তখন পানির আশ্রয় হয় বন বিভাগের খোঁড়া বিলগুলোতে। সেখানেই আশ্রয় নেয় জলজ প্রাণীকুল। বুঝতেই পারছেন রাতাগুল ভ্রমণের সবচেয়ে আদর্শ সময় হল বর্ষাকাল। উত্তরে গোয়াইন নদী, দক্ষিণে বিশাল হাওর। মাঝখানে ‘জলার বন’ রাতারগুল। সিলেট জেলার সীমান্তবর্তী উপজেলা গোয়াইনঘাটের ফতেহপুর ইউনিয়নে এই জলার বনের অবস্থান। সিলেট নগরী থেকে দেশের একমাত্র এই সোয়াম্প ফরেস্টের দূরত্ব প্রায় ২৬ কিলোমিটার।

তবে রাতারগুলের গাছের মধ্যে করচই বেশি। হিজলে ফল ধরে আছে শয়ে শয়ে। বটও চোখে পড়বে মাঝেমধ্যে, মুর্তা গাছ কম। বড়ই অদ্ভুত এই জলের রাজ্য। কোনো গাছের হাঁটু পর্যন্ত ডুবে আছে পানিতে। একটু ছোট যেগুলো, সেগুলো আবার শরীরের অর্ধেকই ডুবিয়ে আছে জলে। কোথাও চোখে পড়বে মাছ ধরার জাল পেতেছে জেলেরা। বর্ষায় পানি বাড়ায় সাপেরা ঠাঁই নেয় গাছের ওপর। হাওরের স্বচ্ছ পানির নিচে বনগুলো দৃশ্যমান থাকায় বর্ষাকালে অনেক পর্যটকের সমাগম ঘটে এখানে। আবার শীত মৌসুমে ভিন্নরূপ ধারণ করে এ বন। পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে জেগে ওঠে মূর্তা ও জালি বেতের বাগান। সে সৌন্দর্য আবার আবার অন্য রকম!

যেভাবে যাবেন : রাতারগুল যাওয়া যায় বেশ কয়েকটি পথে। তবে যেভাবেই যান, যেতে হবে সিলেট থেকেই। সিলেট-জাফলংয়ের গাড়িতে উঠে নেমে যাবেন সারিঘাট। সেখান থেকে টেম্পোতে করে গোয়াইনঘাট বাজার। বাজারের পাশেই পড়বে নৌঘাট। এখান থেকে রাতারগুল যাওয়া-আসার জন্য নৌকা রিজার্ভ করতে হবে। তবে মনে রাখবেন, এই নৌকায় করে কিন্তু রাতারগুল বনের ভেতরে ঢোকা যাবে না। বনে ঢুকতে হবে ডিঙি নৌকায় চেপে।

কিপ রিডিং…

আজারবাইজানের সেরা পাঁচ মসজিদ

অথোর- টপিক- ফিচার/লিড স্টোরি

ককেশীয় অঞ্চলের দেশ আজারবাইজান। পূর্ব ইউরোপ ও পশ্চিম এশিয়ার সীমান্ত বরাবর এর অবস্থান। পূর্বে কাস্পিয়ান সাগর, উত্তরে রাশিয়া, উত্তর-পশ্চিমে জর্জিয়া, পশ্চিমে আর্মেনিয়া এবং দক্ষিণে ইরান। উত্তর-পশ্চিমে তুরস্কের সঙ্গেও এর সংক্ষিপ্ত সীমান্ত রয়েছে। আজারবাইজান তেল সম্পদে সমৃদ্ধ।


বিউটিফুল মস্ক ইন দ্য ওয়ার্ল্ড-০৮। আজারবাইজানের সেরা পাঁচ মসজিদ। লিখছেন আবু সাঈদ যোবায়ের


অবকাঠামো এবং সামরিক খাতে উন্নয়ন-সব ক্ষেত্রেই এই তেলের অর্থই ব্যবহার করে দেশটি। তেল সম্পদের কারণেই দেশটি বেশ সমৃদ্ধ এবং এর আঞ্চলিক প্রভাবও বাড়ছে। তবে একই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে দুর্নীতি ও দারিদ্র্য, যা দেশটির ক্রমবর্ধমান উন্নয়নকে ব্যাহত করছে।

এ ছাড়া সরকারের দিক থেকে মানবাধিকারকর্মী এবং সাংবাদিকদের মুখ বন্ধ করার একটি চেষ্টা চলছে বলেও অভিযোগ রয়েছে, যা দেশটির একেবারে প্রারম্ভিক পর্যায়ে থাকা গণতন্ত্রকে হুমকির মুখে ফেলছে বলে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। গত দুই দশকে অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য আজারবাইজান অন্তর্জাতিক অঙ্গনে ভূয়সী প্রশংসা পেয়েছে। তবে গণমাধ্যমের টুঁটি টিপে ধরার চেষ্টা এই অগ্রগতিকে অনেকাংশেই ম্লান করে দিয়েছে। ‘রিপোর্টারস উইদাউট বর্ডার’ নামে সাংবাদিকদের সংগঠন আজারবাইজানকে মোট ১৮০টি দেশ নিয়ে তৈরি করা এক সূচকে ১৬২তম স্থানে রেখেছে। কিপ রিডিং…

বাংলার বিখ্যাত পাঁচ কবির বাড়ি-ঘর

অথোর- টপিক- ফিচার/লিড স্টোরি

বাংলার বিখ্যাত পাঁচ কবির বাড়ি-ঘর নিয়ে ফিচার। ১. মাইকলে মধুসূদন দত্ত (১৮২৪–১৮৭৩) : জন্ম যদি বঙ্গে তব…। ২. জীবনানন্দ দাশ (১৮৯৯–১৯৫৪) : বাংলার মুখ আমি দেখিয়াছি…। ৩. জসীমউদ্‌দীন (১৯০৩–১৯৭৬): তুমি যাবে ভাই যাবে মোর সাথে…। ৪. সুকান্ত ভট্টাচার্য (১৯২৬–১৯৪৭) : বাংলার মাটি দুর্জয় খাঁটি…। ৫. সৈয়দ শামসুল হক (১৯৩৫–২০১৬) : জাগো বাহে কোনঠে সবায়…। কিপ রিডিং…

যৌথভাবে বাংলাদেশ-ভারতে পিআর সেবা দেবে টাইমস পিআর ও লঞ্চার্জ

অথোর- টপিক- টপ নিউজ/বাংলাদেশ

বাংলাদেশ এবং ভারত প্রথমবারের মত যৌথভাবে পাবলিক রিলেশন (পিআর) সেবা দেবে বাংলাদেশের টাইমস পিআর এবং ভারতের লঞ্চার্জ। সোমবার কলকাতার হাজরা, মনোহর পুকুর রোডে লঞ্চার্জের প্রধান কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ব্যাপারে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

এ সময় বাংলাদেশের হয়ে টাইমস পিআর-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মিজানুর রহমান সোহেল এবং ভারতের হয়ে লঞ্চার্জের সহ-প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক রাজিব লোধাসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। দুই প্রতিষ্ঠানের চুক্তি সম্পর্কে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, অল ইন্ডিয়াতে এই পিআর সেবা দেবে লঞ্চার্জ। কিপ রিডিং…

পছন্দের শীর্ষে থাকা সেরা পাঁচ ইউটিউব চ্যানেল

অথোর- টপিক- ইন্টারনেট/লিড স্টোরি

ভিডিও দেখা আর শেয়ার করার এক দারুণ ওয়েবসাইট ইউটিউব। কত কী শেখার আর শেখানোর উপায় আছে এখানে! যেন এক আলাদিনের ডিজিটাল দৈত্য। প্রদীপ ঘষলেই (পড়ুন ‘সার্চ করলে’) দৈত্য বেরিয়ে এসে বলবে, ‘বলুন কী শিখতে চান!’

ইউটিউবে কাজ বলতে কি শুধু ভিডিও দেখা বোঝায়? নেদারল্যান্ডসের গবেষকেরা বলছেন, ইউটিউব শুধু বিনোদনেরই নয় এটি গবেষণার কার্যকর একটি উপকরণ। গবেষকেরা ইউটিউবের কার্যকারিতা পরীক্ষা করে দেখেছেন, গুগলের এ ভিডিও ওয়েবসাইটটি নানা ক্ষেত্রেই গবেষণার জন্য কার্যকর উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

আমস্টারডামের ভিইউ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা ‘ইউটিউব অ্যাজ রিসার্চ টুল– থ্রি অ্যাপ্রোচেস’ নামের একটি গবেষণা করেছেন। তাঁরা ইউটিউবে থাকা মিডিয়া কনটেন্টের প্রভাব বিশ্লেষণ এবং কিশোরদের ওপর এর প্রভাবের বিষয়টিও খতিয়ে দেখেছেন। টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। ইউটিউবের পছন্দের সেরা ৫টি চ্যানেলের কথা জানুন এখান থেকে… কিপ রিডিং…

মা বোমা এবং বাবা বোমা!

অথোর- টপিক- ফিচার

আবু রায়হান খান : বোমা, শব্দটা শুনলেই কেমন যেন একটা আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। মনে হয় যেন বিকট শব্দে কোনো কিছু বিস্ফোরিত হতে চলেছে। মুহূর্তেই ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে অনেক কিছু। হ্যাঁ, বোমা বস্তুটাই ধাতব পদার্থ দিয়ে তৈরি করা এক ধরনের বিস্ফোরক দ্রব্য, যা কিনা খুব দ্রুত গতিতে অভ্যন্তরীণ পদার্থের মধ্যে রাসায়নিক বিক্রিয়া ঘটিয়ে কম্পন তরঙ্গ তৈরি করার মাধ্যমে খুব সহজেই বিস্ফোরণ ঘটাতে পারে এবং একই সাথে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিও সাধন করতে পারে।

সম্প্রতি (১৩ই এপ্রিল, ২০১৭) পাকিস্তানের সীমান্তঘেঁষা আফগানিস্তানের নানগারহার প্রদেশের আচিন জেলায় আইএস (ISIS) জঙ্গিদের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত পার্বত্য অঞ্চলের এক গুহায় ‘মাদার অব অল বোম্বস’ নামে এক বোমা নিক্ষেপ করে যুক্তরাষ্ট্র। একে এখন পর্যন্ত ব্যবহার করা সবচেয়ে শক্তিশালী অপারমাণবিক বোমা হিসেবে দাবি করছে তারা। কিপ রিডিং…

গো টু টপ