Tag archive

এন্টারপ্রেনারশিপ

ওয়ারেন বাফেট : আদর্শবান জাত ব্যবসায়ী

ওয়ারেন বাফেট। বর্তমান বিশ্বের ব্যবসায়িক জগতে এক আলোকিত নাম। তার ব্যবসায়িক জীবনের কৌশল, আদর্শ, সাফল্য নিয়ে লিখে শেষ করা যাবে না । বর্তমানে তিনি বিশ্বের তৃতীয় ধনী হিসেবে আসন গেড়ে আছেন। তার সম্পদের পরিমাণ ৬০ বিলিয়নের ওপরে।


ক্রেডিট কার্ড ও ব্যাংক লোন থেকে দূরে থাকুন। নিজের যা আছে তাই বিনিয়োগ করুন। মনে রাখবেন- টাকা মানুষ সৃষ্টি করে না। কিন্তু মানুষ টাকা সৃষ্টি করে।


সংবাপত্রের হকারি দিয়ে শুরু : ওয়ারেন বাফেট এক সময় মুদি দোকানে কাজ করতেন। ছিলেন হকার। বিক্রি করতেন সংবাদপত্র। বর্তমান দুনিয়ার দ্বিতীয় শীর্ষ ধনী। বর্তমানে ৬৩টি কোম্পানির মালিক। এ পর্যন্ত ৩ হাজার ১০০ কোটি ডলার দান করেছেন বিভিন্ন দাতব্য সংস্থায়। তারপরও তিনি ৪ হাজার কোটি ডলারের মালিক। এখন তার নামের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে অনেক বিশেষণ। মার্কিন বিনিয়োগকারী, ব্যবসায়ী এবং লোকহিতৈষী বলে পরিচিতি পেয়েছেন। অনেকে তাকে ‘মিরাকল অব ওমাহা’ নামে ডাকেন। বিশেষভাবে বলতে হয়, এতো সম্পদের মালিক হয়েও তার মধ্যে নেই কোন বিলাসিতা। কিপ রিডিং…

অ্যামানসিও ওর্তেগা : শ্রমিক থেকে শীর্ষ ধনী


কঠোর পরিশ্রমী মানুষ হিসেবে তিনি সুপরিচিত। ইনটেক্সের দীর্ঘদিনের পুরনো সাবেক সিইও এবং ওর্তেগার ব্যবসার অংশীদার জোসে মারিয়া ক্যাস্টেলানো ৩১ বছর ধরে তার সঙ্গে রয়েছেন । তিনি বলেন, ওর্তেগা তার প্রতিষ্ঠানের ছোট ছোট দলগুলোর সঙ্গে খুব সময় নিয়ে আলোচনা করেন। তাদের জন্য প্রচুর সময় দেন তিনি।


অ্যামানসিও ওর্তেগা। বর্তমানে বিশ্বের দ্বিতীয় ধনকুবের হিসেবে তাকে অভিহিত করা হয়।এরআগে  বিল গেটসকে পেছনে ফেলে তিনি শীর্ষস্থান দখল করে নিয়েছিলেন । সম্প্রতি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ম্যাগাজিন ফোর্বস-এর তৈরি করা বিশ্বের সেরা ধনীদের তালিকায় তিনি রয়েছেন দ্বিতীয় স্থানে। বর্তমানে তার সম্পদের পরিমাণ ৬৭ বিলিয়ন ডলার। বিশ্বখ্যাত পোশাক নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জারা ফ্যাশনের প্রতিষ্ঠাতা তিনি।

শ্রমিক থেকে শীর্ষ ধনী : স্পেনের সাধারণ এক রেলওয়ে কর্মকর্তার ঘরে জন্ম অ্যামানসিও ওর্তেগার। নিজের ব্যবসা শুরু করার আগে তিনি কাজ করতেন একটি দোকানের নিম্ন কর্মচারী হিসেবে। এরপর ১০০ ডলারেও কম অর্থ নিয়ে শুরু করেন নিজের ব্যবসা। তিনি এবং তার স্ত্রী রোসালিয়া মেরা বাসায় বসে পাজামা, রাতের পোশাক তৈরি করতেন। সেই থেকে শুরু। ১৯৭৫ সালে এই দম্পতি একটা ছোট দোকান খোলেন। যার নাম দেন ‘জারা’। এরপর দীর্ঘ আট বছর পর সেই ছোট দোকানের নয়টি শাখা গড়ে ওঠে স্পেনের আটটি অঞ্চলে। আর ১৯৮৪ সালে ওর্তেগা চালু করেন ১০ হাজার বর্গমিটারের এক বিশাল ব্যবসায়িক কেন্দ্র।

বিশ্বের ফ্যাশন হাউস জগতে রীতিমতো বিপ্লব সৃষ্টিকারী অ্যামানসিও ওর্তেগা থাকেন স্পেনের লা করুনায়। নর্থ স্পেনে তার জন্ম। ওর্তেগার বাবা ছিলেন রেলওয়ে বিভাগের একজন সাধারণ শ্রমিক। মা বিভিন্ন বাসায় কাজ করে অর্থ উপার্জন করতেন। মাত্র ১৩ বছর বয়স থেকেই অর্থের অভাবে বিভিন্ন ধরনের শ্রমিকের কাজ করতে হয়েছে ওর্তেগাকে। ১৯৭২ সালে প্রথম ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত হন। সর্বশেষ ২০১২ সালের অক্টোবরের হিসাব অনুযায়ী, জারা ফ্যাশন হাউসের সারা বিশ্বে ১,৭২১টি আউটলেট রয়েছে। ২০১১ সালে তিনি বিশ্বখ্যাত ফ্যাশন হাউস ইন্ডিটেক্সের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। অ্যামানসিও জারার মালিক। প্যারেন্ট কম্পানি ইনডেক্সের মালিকও বটে। এ ছাড়া তার অধীনে রয়েছে স্প্রলিং ব্রিক্স এবং মর্টার ফ্যাশন সাম্রাজ্য। যার ৭ হাজার স্টোর রয়েছে গোটা বিশ্বের ভিন্ন ভিন্ন ৯১টি বাজারে। সব মিলিয়ে তার নেট সম্পদের পরিমাণ ৮৬ বিলিয়ন ইউরো। তার ব্যবসায়িক ব্যবস্থাপনা পরিচালনা প্রচলিত নিয়মের থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন।

কিপ রিডিং…

বিল গেটস : কিভাবে তিনি শীর্ষ ধনী?

বিল গেটস। দীর্ঘ অধ্যাবসায় এবং কঠোর পরিশ্রম ও সাধনার মাধ্যমে একজন মানুষ বিশ্বের কোথায় অবস্থান করতে পারে তার বিরল দৃষ্টান্ত মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা যুক্তরাষ্ট্রের বিল গেটস। তাই তো বর্তমান বিশ্বের এক নম্বর ধনীর খেতাবটা তার আয়ত্বেই আছে এখনো । তাঁর সম্পদের পরিমাণ সাড়ে ৭ হাজার কোটি ডলার। টাকার অঙ্কে এর পরিমাণ ৬ লাখ কোটি টাকা, যা বাংলাদেশের চলতি অর্থবছরের বাজেটের প্রায় দ্বিগুণ। তিনি মূলত উদাহরণ সৃষ্টিকারী একজন উদ্যোক্তা, বিনিয়োগকারী, মানবহিতৈষী ও লেখক । আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ম্যাগাজিন ফোর্বস-এর তৈরি করা বিশ্বের সেরা ধনীদের তালিকায় তিনি রয়েছেন শীর্ষস্থানে। তার ধনসম্পদের মোট মূল্যমান ৭৬ বিলিয়ন বা ৭ হাজার ৬০০ কোটি মার্কিন ডলার। গত এক বছরে তার ধনসম্পদের মূল্য বেড়েছে ৯০০ কোটি ডলার।

হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী থাকাকালীন সহপাঠী ও বন্ধু পল অ্যালেনকে নিয়ে বেসিক প্রোগ্রাম লেখা শুরু করেন। তারপর সফটওয়্যার তৈরির মাধ্যমে কম্পিউটিং জগতে আনেন বৈপ্লবিক পরিবর্তন। ধীরে ধীরে মাইক্রোসফট-সহ তার ব্যবসা ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। মেধার সঙ্গে যোগ হয় পরিশ্রম। স্বপ্নকে ছুঁয়ে দেখার অনবদ্য চেষ্টা ও একাগ্রতা তাকে করে তুলেছে বিশ্বসেরা ধনী, বিশ্বের সবচেয়ে প্রশংসিত ও প্রভাবশালী ব্যক্তিদের একজন।


বিল গেটসের সফলতার পেছনে কি রহস্য লুকিয়ে আছে? জানতে চাইল তিনি খুবই স্বাভাবিক ভঙ্গিমায় সবাইকে অবাক করা উত্তর দেন। বিল গেটস বলেন, ‘আমাদের জন্য সফলতার প্রথম মূলমন্ত্র হলো, সব সময় খুব চৌকস ব্যক্তিদের কাজে নিয়ে আসুন।


কিপ রিডিং…

গো টু টপ