Tag archive

ব্যাংক-ইনস্যুরেন্স

সেন্ট্রাল শরীয়াহ্ বোর্ডের সদস্য হলো ব্যাংক আলফালাহ লিমিটেড

‘সেন্ট্রাল শরীয়াহ্ বোর্ড ফর ইসলামিক ব্যাংকস্ অব বাংলাদেশ’-এর আমন্ত্রণের প্রেক্ষিতে ব্যাংক আলফালাহ্ লিমিটেড এক পত্রের মাধ্যমে সেন্ট্রাল শরীয়াহ্ বোর্ড-এর সদস্যপদ লাভের জন্য তাদের আগ্রহের কথা জানায়। এর প্রেক্ষিতে ২০ মে, ২০১৭ ব্যাংক আলফালাহ্ লিমিটেডকে সাময়িক সদস্যপদ প্রদান করা হয়। এর মাধ্যমে দেশের ইসলামী শাখাধারী সকল ব্যাংক সেন্ট্রাল শরীয়াহ্ বোর্ডের পরিবারভুক্ত হলো। বর্তমানে ব্যাংক আলফালাহ্ লিমিটেড ১টি শাখার মাধ্যমে বাংলাদেশে ইসলামিক ব্যাংকিংসেবা প্রদান করছে।



কিপ রিডিং…

ইসলামী নন-লাইফ বীমার উৎস, উৎপত্তি ও ক্রমবিকাশ

একিউএম ছফিউল্লাহ আরিফ : বীমার পরিচয়- মানুষের জীবন যাত্রার প্রতিটি পর্যায়ে বিপর্যয়জনিত অনিশ্চয়তা প্রতিকূল প্রভাব বিস্তার করে। অনাকাক্সিক্ষত এবং অপ্রত্যাশিত ঘটনার ফলে সম্পদ ও সম্পত্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ঝুঁকি থেকে সৃষ্ট অনিশ্চয়তা এবং অনিশ্চয়তা থেকে সৃষ্ট ক্ষয় ক্ষতি পূরণ করার চুক্তিভিত্তিক ব্যবস্থা বীমা নামে পরিচিত। বীমাকে বহু ব্যক্তির মধ্যে ক্ষতি বণ্টনের সমবায় পন্থা হিসেবেও বিবেচনা করা হয়। বীমা হলো মানুষের জীবন ও সম্পদের ঝুঁকির বিপক্ষে এক ধরনের আর্র্থিক প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থা। বীমা হলো ঝুঁকি বণ্টনের একটি সহায়কমূলক ব্যবস্থা। বীমা হলো ভবিষ্যতে ঝুঁকি মোকাবেলার জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণ চাঁদা প্রদানের মাধ্যমে আগাম ব্যবস্থা।

বীমা হলো দু’ই বা ততোধিক পক্ষের মধ্যে সম্পাদিত একটি চুক্তি যার মাধ্যমে এক বা একাধিক পক্ষ বীমাকারীর নিকট নির্দিষ্ট অংকের প্রিমিয়াম বা নির্দিষ্ট পরিমাণ চাঁদার বিনিময়ে সম্পূর্ণ বা আংশিক ঝুঁকির ক্ষতিপূরণ দিতে সম্মত হয় এবং বীমাচুক্তিপত্রে উল্লেখিত নির্দিষ্ট কারণে বীমাগ্রহীতা ক্ষতিগ্রস্থ হলে বীমাকারী চুক্তির শর্তানুযায়ী বীমাগ্রহীতা বা তাঁর প্রতিনিধিকে নির্দিষ্ট পরিমাণ ক্ষতিপূরণ বা অর্থ প্রদানের নিশ্চয়তা দেয়।

Prof. Mark R. Greene এর মতে Insurance is an economic institution that reduces risk both to society and to individuals by combining under one management a large group of objects so situated that the aggregate losses to which society is subject become predictable within narrow limits অর্থাৎ “বীমা হলো এমন একটি অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান যা একটি মাত্র ব্যবস্থাপনার অধীনে বহুসংখ্যক উদ্দেশ্যকে এমনভাবে সমন্বিত করে যাতে করে সমাজ যেসব ক্ষতির সম্মুখিন হতে পারে সেসবকে সীমিত পরিসরে অনুমানপূর্বক সমাজ ও ব্যক্তি উভয়েরই ঝুঁকি হ্রাস করা যায়।”

Prof. M. N. Mishra বীমার কার্যভিত্তিক সংজ্ঞায় বলেন, Insurance is a co-operative form of distributing a certain risk over a group of persons, who are exposed to it অর্থাৎ “বীমা হচ্ছে এমন এক সমবায়ভিত্তিক যৌথ লোকসান বণ্টন ব্যবস্থা, যেখানে নির্দিষ্ট ঝুঁকিজনিত ক্ষয় ক্ষতি একাধিক সম্পৃক্ত ব্যাক্তির মধ্যে বণ্টন হয় এবং যাঁরা উক্ত ঝুঁকির বিরুদ্ধে নিজেদের বীমাবন্দি করতে সম্মত থাকে।”

প্রখ্যাত বীমা বিশারদ মি. পোর্টার বলেন, Human life is sorunded with lots of danger, creating preventive measure against these dangers is insurance. অর্থাৎ “মানুষের জীবন ও তাঁর কার্যাবলী বিভিন্ন প্রকার বিপদাপদে বেষ্টিত। এসব অজানা বিপদাপদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার ব্যবস্থাই হলো বীমা।” সুতরাং একজনের ক্ষতি ভাগাভাগি করে নেয়ার ধারণা থেকে বীমা ব্যবস্থার উদ্ভব। কিপ রিডিং…

সেন্ট্রাল শরীয়াহ্ বোর্ডের ৩৬তম সাধারণ অধিবেশন অনুষ্ঠিত

সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেডের প্রধান কার্যালয়ের বোর্ডরুমে ‘সেন্ট্রাল শরীয়াহ্ বোর্ড ফর ইসলামিক ব্যাংকস্ অব বাংলাদেশ’-এর ৩৬তম সাধারণ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। বোর্ডের সম্মানিত চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ সাইয়্যেদ কামালুদ্দীন জাফরী এতে সভাপতিত্ব করেন। সেন্ট্রাল শরীয়াহ্ বোর্ডের সম্মানিত উপদেষ্টা জনাব শাহ্ আব্দুল হান্নান, নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান জনাব এম আযীযুল হক এবং সেক্রেটারি জেনারেল জনাব একিউএম ছফিউল্লাহ্ আরিফসহ ২০টি সদস্যব্যাংক ও ১টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং শরীআহ্ সুপারভাইজরি কমিটি/কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ও সদস্যসচিব/সচিবগণ উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বাংলাদেশে ইসলামী ব্যাংকিংয়ে শরী‘আহ্ পরিপালনসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। তাছাড়া সেন্ট্রাল শরীয়াহ বোর্ডের ২০১৬ সালের বার্ষিক আয়-ব্যয়ের ব্যালেন্স শিট ও অডিট রিপোর্ট, ২০১৭ সালের বার্ষিক কর্মপরিকল্পনা এবং আয়-ব্যয় বাজেট অনুমোদিত হয়। বোর্ডের সদস্যপ্রতিষ্ঠানসমূহের সৌজন্যে বাংলাদেশের খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ‘ইসলামিক ব্যাংকিং চেয়ার’ প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্তও সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়।


বোর্ডের সদস্যপ্রতিষ্ঠানসমূহের সৌজন্যে বাংলাদেশের খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ‘ইসলামিক ব্যাংকিং চেয়ার’ প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্তও সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়।


কিপ রিডিং…

ইসলামি ব্যাংকিং শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত


প্রশিক্ষণার্থী হিসেবে ইসলামিক ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের বিভিন্ন বিভাগে দায়িত্বরত মোট ২২জন নির্বাহী কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন। দিনব্যাপি কর্মশালাটি প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সনদপত্র বিতরণের মাধ্যমে শেষ হয়।


সেন্ট্রাল শরীয়াহ বোর্ড ফর ইসলামিক ব্যাংকস অব বাংলাদেশ ও ইসলামিক ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড-এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত দিনব্যাপী “ইসলামী ব্যাংকিং” শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। সেন্ট্রাল শরীয়াহ বোর্ডের সেক্রেটারি জেনারেল জনাব একিউএম ছফিউল্লাহ্ আরিফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামিক ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের প্রধান শাখার ব্যবস্থাপক ও এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট জনাব মারুফ মনসুর। প্রধান প্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা ব্যাংক, দি সিটি ব্যাংক, পূবালী ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, এবি ব্যাংক লিমিটেড ও আইএফআইএল-এর শরীআহ্ সুপারভাইজরি কমিটির চেয়ারম্যান এবং সেন্ট্রাল শরীয়াহ বোর্ড নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান জনাব এম আযীযুল হক। প্রশিক্ষণার্থী হিসেবে ইসলামিক ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের বিভিন্ন বিভাগে দায়িত্বরত মোট ২২জন নির্বাহী কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন।

প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে ইসলামিক ফাইন্যান্স ও ব্যাংকিংয়ের সাফল্য তুলে ধরে বলেন, ইসলামী ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহ সুদমুক্ত আর্থিক কার্যক্রম প্রবর্তনের মাধ্যমে সমাজকে সুদের কুফল থেকে মুক্ত করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, সমাজের অর্থনৈতিক বৈষম্য, দুর্নীতি -এ সবের মূলে রয়েছে সুদভিত্তিক অর্থব্যবস্থা। ইসলামী অর্থনৈতিক ব্যবস্থা বাস্তবায়নের মাধ্যমেই এই বৈষম্য ও অস্থিরতা দূর করা সম্ভব। কিপ রিডিং…

আধুনিক ইসলামিক ব্যাংকিংয়ের পথিকৃৎ প্রতিষ্ঠান এক্সিম ব্যাংক : ড. মোহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া

ড. মোহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া- এক্সপোর্ট ইমপোর্ট ব্যাংক অব বাংলাদেশ লিমিটেড-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী। তাঁর পিতার নাম হাজি মোহাম্মদ আরশাদ আলী এবং মাতার নাম হামিদা বেগম। মানিকগঞ্জ জেলার হরিরামপুর থানার এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ১৯৫৭ সালে জন্ম গ্রহণ করেন জনাব মোহাম্মদ হায়দার আলী। ইবরাহিমপুর ঈশ্বরচন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় তাঁর জীবনের প্রথম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স, লন্ডন ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি অ্যান্ড রিসার্চ থেকে ম্যানেজমেন্ট এবং মার্কেটিং বিষয়ে এমবিএ এবং আমেরিকান ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি ক্যালিফোর্নিয়া থেকে পি.এইচ. ডি. ডিগ্রি লাভ করেন। এছাড়া তিনি দ্য ইন্সটিটিউট অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ থেকে ‘ব্যাংকিং ডিপ্লোমা’ উভয় পার্ট সম্পন্ন করেন এবং লন্ডন থেকে ‘ইসলামিক ব্যাংকিং এ- ইন্সুরেন্স’ বিষয়ে পোস্ট গ্রাজুয়েট ডিপ্লোমা অর্জন করেন। ১৯৮৪ সালে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড-এ প্রবেশনারী অফিসার হিসেবে ব্যাংকিং পেশায় যোগদান করেন। একজন আদর্শ ইসলামি ব্যাংকার হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন তিনি। আজকের এই অবস্থানে অধিষ্ঠিত হওয়ার নেপথ্যে আল্লাহ মহানের রহমত ও সহযোগিতার পাশাপাশি তাঁর স্বপ্ন, যোগ্যতা এবং কঠোর-ঐকান্তিক পরিশ্রমই ছিলো মূল। ইসলামি ব্যাংকিং বিষয়ে লিখেছেন বেশ কিছু বই। ইতোমধ্যে তাঁর ‘এ হ্যন্ড বুক অব ইসলামিক ব্যাংকিং এন্ড ফরেন এক্সচেঞ্জ অপারেশন’ এবং ‘এ ওয়ে টু ইসলামিক ব্যাংকিং কাস্টমস এন্ড প্র্যাকটিস’ নামে দুটি মূল্যবান বই প্রকাশিত হয়েছে। জনাব হায়দার আলী মিয়া একজন বীর মুক্তিযোদ্ধাও। একটি বিনিয়োগবান্ধব ব্যাংক হিসেবে এক্সপোর্ট ইমপোর্ট ব্যাংক অব বাংলাদেশ লিমিটেড -এর রয়েছে দেশজোড়া সুনাম ও খ্যাতি। সামাজিক দায়বদ্ধতা কার্যক্রম পরিচালনায় বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে ব্যাংকটি। বাংলাদেশের ইসলামিক ব্যাংকিং ব্যবস্থাপনা, এক্সপোর্ট ইমপোর্ট ব্যাংক অব বাংলাদেশ লিমিটেড-এর নানাবিধ কার্যক্রম এবং বিশ্ব পরিমণ্ডলে ইসলামিক ব্যাংকিংয়ের বর্তমান অবস্থান ও ভবিষ্যৎ সম্পর্কিত নানান প্রসঙ্গ নিয়ে দীর্ঘ আলাপচারিতা হয় এক্সিম ব্যাংকস্থ তাঁর কক্ষ-কার্যালয়ে।


গ্লোবাল ইকোনমিস্ট ফোরাম বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের প্রেসিডেন্ট হিসেবে পুননির্বাচিত হয়েছেন এক্সপোর্ট ইমপোর্ট ব্যাংক অব বাংলাদেশ লিমিটেড ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী ড. মোহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া। সম্প্রতি ঢাকায় ফোরামের ২০১৫-১৬ মেয়াদের দ্বিবার্ষিক সাধারণ সভায় ২০১৭-১৮ মেয়াদের জন্য তাকে পুননির্বাচিত করা হয়। উল্লেখ্য, গ্লোবাল ইকোনমিস্ট ফোরাম জাতিসংঘের পরামর্শক সংস্থা হিসেবে অর্থনৈতিক উন্নয়ন কৌশলপত্র প্রণয়ন, ব্যবসা-বাণিজ্য উন্নয়ন ও বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে বিশ্বের ১৫৮টি দেশে কাজ করে থাকে।


কিপ রিডিং…

ইসলামী ব্যাংকে ‘শান্তিপূর্ণ’ পরিবর্তন

ইসলামী ব্যাংকের পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে বড় ধরনের পরিবর্তন এসেছে। ব্যাংকটির চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি), নির্বাহী ও অডিট কমিটির চেয়ারম্যান পদে পরিবর্তন আনা হয়েছে। ব্যাংকটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে জামায়াত-নিয়ন্ত্রিত ব্যাংক হিসেবেই পরিচিত ছিল। সেই পরিচয় থেকে ব্যাংকটিকে বের করে আনতে বেশ কিছুদিন ধরে এটির মালিকানা, পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনায় ধাপে ধাপে পরিবর্তন আসছিল। সর্বশেষ গতকাল দিনভর অনুষ্ঠিত পরিচালনা পর্ষদের সভায় বড় ধরনের পরিবর্তন আনা হয়।
জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ প্রতিষ্ঠান ইবনে সিনা ট্রাস্টের প্রতিনিধি হিসেবে এত দিন ব্যাংকটির চেয়ারম্যানের দায়িত্বে ছিলেন মুস্তাফা আনোয়ার। তাঁর জায়গায় দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সরকারের সাবেক সচিব আরাস্তু খানকে।
যুদ্ধাপরাধের দায়ে ফাঁসি কার্যকর হওয়া মীর কাসেম আলী ছিলেন ইসলামী ব্যাংকের অন্যতম উদ্যোক্তা। তিনি একসময় ইবনে সিনা ট্রাস্টেরও চেয়ারম্যান ছিলেন।
রাজধানীর পাঁচ তারকা র্যা ডিসন হোটেলে অনুষ্ঠিত পর্ষদ সভায় ব্যাংকটিতে বড় ধরনের এ পরিবর্তন আনা হয়। পরিবর্তন আনা হয়েছে ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান পদেও।

নতুন পরিচালক হিসেবে গতকাল পর্ষদ সভায় যোগ দিয়েই ব্যাংকটির চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন সরকারের সাবেক সচিব আরাস্তু খান। আরমাডা স্পিনিং মিলস নামের একটি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি হিসেবে আরাস্তু খান ইসলামী ব্যাংকের পরিচালক মনোনীত হন। গতকালই তিনি প্রথম পর্ষদ সভায় যোগ দেন এবং সেখানে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।


“ব্যাংকের পর্ষদ সভায় চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও এমডি পরিবর্তন”


চেয়ারম্যান পদ ছাড়াও ব্যাংকটির পরিচালক ও ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান পদ থেকেও পদত্যাগ করেন মুস্তাফা আনোয়ার। পদত্যাগ করেছেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আবদুল মান্নান। নতুন এমডি হিসেবে ইউনিয়ন ব্যাংকের এমডি আবদুল হামিদ মিঞার নাম অনুমোদন করা হয়। নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদন সাপেক্ষে তাঁর নিয়োগ কার্যকর হবে। তবে আবদুল মান্নান পর্ষদ সভায় উপস্থিত ছিলেন না।
কিপ রিডিং…

অনলাইন সুবিধায় জনতা ব্যাংকের সাত শতাধিক শাখা

ইকোনমি ডেস্ক : রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন জনতা ব্যাংকের মোট শাখা ৯১১টি। এর মধ্যে ৭২১ শাখায় ২০১৬ সাল শেষে অনলাইন সুবিধা চালু করা হয়েছে। ২০১৫ সাল নাগাদ ব্যাংকটির অনলাইন শাখার সংখ্যা ছিল ৫০৩টি। এ বছরের জুনের মধ্যে ব্যাংকটির সবগুলো শাখায় অনলাইন সুবিধা চালুর পরিকল্পনা রয়েছে। ব্যাংকটির সিইও ও এমডি মো. আবদুস সালাম এ তথ্য জানিয়েছেন।এদিকে ২০১৬ সালে এক হাজার ছয় কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা অর্জন করেছে ব্যাংকটি। মুনাফার লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৯০০ কোটি টাকা। কিপ রিডিং…

গো টু টপ