Tag archive

ভারত

তিন তালাক দিলে তিন বছর জেল!

এক সাথে তিন তালাক শব্দ উচ্চারণ করে বা তিন তালাক লিখে তাৎক্ষণিকভাবে বিবাহ বিচ্ছেদের বিরুদ্ধে ভারতে আইন করা হচ্ছে। নতুন এই আইন অনুযায়ী, তিন তালাক শব্দ উচ্চারণ করলে বা লিখে পাঠালে বিবাহ বিচ্ছেদ বৈধ হবে না। এই আইনে আরো বলা হচ্ছে, কেউ যদি এমন কাজ করে (তিন তালাক শব্দ উচ্চারণ করে বা লিখে পাঠায়) তাহলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির তিন বছর কারাদণ্ড বা জেল হতে পারে। প্রস্তাবিত এই আইনের খসড়া এখন পরামর্শের জন্য ভারতের রাজ্য সরকারগুলোর কাছে পাঠানো হয়েছে। কারাদণ্ড বা জেলের পাশাপাশি তালাকাপ্রাপ্তা নারীদের প্রাপ্য জরিমানা দেওয়ার বিধানও রাখা হবে এই আইন।


নতুন এই আইনটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘মুসলিম উইমেন প্রোটেকশন অব রাইটস অন ম্যারেজ বিল’।


ভারতের সুপ্রিম কোর্টের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, ‘তিন তালাক দেওয়ার পর যদি কোনো স্বামী তাঁর স্ত্রীকে বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য করে, তাহলে তালাকাপ্রাপ্তা নারী সব ধরনের আইনি সুবিধা পাবে- এমন নির্দেশনা আছে নতুন আইনের খসড়ায়’। তিনি আরো বলেন, ‘এই খসড়া পার্লামেন্টের আগামী শীতকালীন সভায় পাস হওয়ার সম্ভাবনা আছে’। কিপ রিডিং…

যৌথভাবে বাংলাদেশ-ভারতে পিআর সেবা দেবে টাইমস পিআর ও লঞ্চার্জ

বাংলাদেশ এবং ভারত প্রথমবারের মত যৌথভাবে পাবলিক রিলেশন (পিআর) সেবা দেবে বাংলাদেশের টাইমস পিআর এবং ভারতের লঞ্চার্জ। সোমবার কলকাতার হাজরা, মনোহর পুকুর রোডে লঞ্চার্জের প্রধান কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ব্যাপারে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

এ সময় বাংলাদেশের হয়ে টাইমস পিআর-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মিজানুর রহমান সোহেল এবং ভারতের হয়ে লঞ্চার্জের সহ-প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক রাজিব লোধাসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। দুই প্রতিষ্ঠানের চুক্তি সম্পর্কে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, অল ইন্ডিয়াতে এই পিআর সেবা দেবে লঞ্চার্জ। কিপ রিডিং…

সোশ্যাল মিডিয়ার বদৌলতে জিরো থেকে হিরো!


মানুষের জীবন বড়ই বৈচিত্রময়। আজ যে ফকির, কাল সে রাজা! ভাগ্যের এরকম রকমফের অনেক মানুষের জীবনেই আসে। কারো ব্যক্তিগত প্রচেষ্টায়, কারো বা নিতান্তই ভাগ্যবশত। এর বাইরে এখন আরেকটি মাধ্যম যোগ হয়েছে, আর তা হলো সোশ্যাল মিডিয়া। ইন্টারনেটের এই যুগে সামাজিক যোগাযোগের কারণে কত অজানা, আনকোরা, সাধারণ পেশার মানুষ রাতারাতি পৌঁছে গেছেন খ্যাতির চূড়ায়। এক সময় ছিলেন সাধারণ, পরে হয়ে উঠেছেন জনপ্রিয়; এমনই কয়েকজন ব্যক্তির গল্প শুনলে মন্দ হয় না! লিখেছেন পাপিয়া দেভি অশ্রু


এক. কুসুম শ্রেষ্ঠ (নেপাল)

এই তরুণী সম্পর্কে সোশ্যাল মিডিয়ায় কল্পনা-জল্পনার অন্ত নেই। সর্বত্র তার পরিচয় একটাই। সবজিওয়ালি। টুইটার ব্যবহারকারীরা মেয়েটির রূপের এবং সরলতার প্রশংসা করে তার ছবি ভাইরাল করলেও তার নামটি জানা ছিল না কারো। কিছু দিন আগে নেপালের গোর্খা এবং চিতওয়ানের পার্শ্ববর্তী এলাকায় তার কয়েকটি ছবি তুলেছিলেন আলোকচিত্রী রূপচন্দ্র মহাজন। যেগুলো সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে পোস্ট করার পরেই ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল মুহূর্তের মধ্যে। পরপর দু’টি ছবি পোস্ট করেছিলেন রূপচন্দ্র। একটিতে সেই তরুণী টমেটো ভর্তি বাক্স পিঠে নিয়ে সেতু পার হচ্ছেন। অন্যটিতে তিনি সবজির বাজারে ফোনালাপে ব্যস্ত। এলোমেলো চুল, সবুজ সালোয়ার কামিজ পরিহিতা ঐ তরুণী মুহূর্তে হয়ে উঠেছে যুবকদের নয়নের মণি। অবশেষে জানা যায় তার নাম, কুসুম শ্রেষ্ঠা, বয়স ১৮।

কাঠমুণ্ডু থেকে প্রায় ৫৫ মাইল দূরে, গোর্খা এলাকার শহর বাগলিংয়ে থাকে কুসুমের পরিবার। চিতওয়ান জেলার একটি কলেজে পড়াশোনার পাশাপাশি ছুটির দিনে পরিবারকে সাহায্যের জন্য সবজি বিক্রির কাজ করেন তিনি। ইন্টারনেটে এভাবে খ্যাতি ছড়িয়ে পড়ায় রীতিমতো অবাক হন কুসুম শ্রেষ্ঠা। মডেলিংয়ের প্রস্তাব পান। বর্তমানে কুসুম পড়াশোনার পাশাপাশি চুটিয়ে মডেলিং করছেন। কিপ রিডিং…

গো টু টপ